6.7.10

কেশোয়ারী

 জিনিয়াস বুকের তথ্য মতে কেশোওয়ারী পাখি পৃথিবীর সবচেয়ে হিংস্র জাতের পাখি। এই আক্রম্নাত্মক পাখি অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিনিয়ার জলাশয় যুক্ত বনে দেখা যায়। উটপাখির পরই সবচেয়ে বড় পাখি হচ্ছে নিউগিনি দ্বীপের পাখি কেশওয়ারি। উটপাখির মতো এটিও উড়তে পারে না। ১৯৮২ সালে ঢাকা চিড়িয়াখানার জন্য স্ত্রী-পুরুষ মিলিয়ে কেশওয়ারির জোড়া আনা হয়। তাদের গড় আয়ু ২৮ থেকে ৩০ বছর। দুটো কেশওয়ারিরই বয়স ২৭ ছাড়িয়েছে। তাদের অনি্তম সময় ঘনিয়ে এসেছে।
পাঁচ ফুট উচ্চতা এবং ১৮০ পাউন্ড ওজনের বিশালদেহী পাখি হচ্ছে ক্যাসোয়ারি। এ পাখি উড়তে পারে না। কিন্তু ছুটতে পারে ঘন্টায় প্রায় ৩০ মাইল বেগে। এদের সমস্ত দেহ চুলের মত মোটা লোমে ঢাকা থাকে, যার ফলে এদের ডানা দেখা যায় না। ক্যাসোয়ারি পাখির মাথায় আছে হাড়ের টুপি। নীল রঙের গলায় দেখা যায় লাল চামড়ার ঝালর। এ পাখিরা দক্ষ সাঁতারু হিসেবে বেশ পরিচিত। ক্যাসোয়ারি পাখিদের পায়ে রয়েছে তিনটি করে আঙুল, সবকটিই সামনের দিকে। প্রতিটি আঙুলের ডগায় রয়েছে বল্লমের ফলার মত ধারাল নখ। শূন্যে লাফিয়ে উঠে এরা তাদের ধারাল নখ দিয়ে প্রতিপক্ষকে আক্রমণ করে। হিংস্র স্বভাবের জন্য বনের অনেক প্রাণী এদের এড়িয়ে চলে। মানুষ এর কাছাকাছি গেলেই আক্রমন করে না কিন্তু যদি মনে করে তাদের কোন ক্ষতি হতে পারে তবে তাদের ধারালো নখ ও ঠোঁট দিয়ে সহজেই ঘায়েল করে ফেলে। কেশোয়ারী লাফ দিয়ে প্রতিপক্ষের কাছে বেশ দ্রুত চলে যায় ও লাথি দিয়ে মাটিতে ফেলে ঠোট দিয়ে ক্ষত করে ফেলে। কেশওয়ারী কুকুর জাতীয় প্রাণী মেরে ফেলে।
 আরো জানতে এখানে ক্লিক করুন

0 comments:

Post a Comment