27.5.10

ফুলটুসি টিয়া

আমাদের অত্যন্ত পরিচিত সবুজ টিয়ার চেয়ে সামান্য ছোট (লম্বায় ৩৬ সেন্টিমিটার, পাখা ১৪ দশমিক ৫, ঠোঁট দুই ও লেজ ১৭ সেন্টিমিটার) আকারের পাখি ফুলটুসি টিয়া। ইংরেজি নাম ব্লসম হেডেড প্যারাকিট। পুরুষ পাখির লেজ ও পাখার উপরিভাগ গাঢ় সবুজ। পাখিটির ঘাড়, বুক ও পেটের রং হলদে সবুজ। কাঁধে প্রবাল লাল কয়েকটি পালক দেখা যায়। মাথার রং গোলাপি লাল, কণ্ঠি, চিবুক ও গলার অংশ কালো। ওপরের ঠোঁট হালকা গোলাপি, নিচের ঠোঁট গাঢ় বাদামি। চোখের রং হলুদ, পা ও আঙুলের রং সবজে বাদামি। মেয়ে পাখির রং পুরোটাই সবুজ, শুধু মাথা ও চিবুকের রং হালকা নীলচে বাদামি। কণ্ঠির পেছনের দিকটা হলদে সবুজ।

ঘন ও হালকা বন, এমনকি চষা জমির গাছপালায় এরা বসবাস করে। সাধারণত পাঁচ-দশটি পাখি দলে থাকে, তবে জঙ্গলের ভেতরে শতাধিক পাখির দলও দেখা যায়। জঙ্গল, বাগান, খামারের ফল-ফুলের গাছে এদের দেখা মেলে। অনেক সময় পাকা ধান ও যবের খেতে হামলা চালায়। ফল, পুরু ফুল, ফুলকুঁড়ি, মধু এদের প্রধান খাদ্য। ওড়ার সময় টুইই-টুইই কর্কশ শব্দে ডাক ছাড়ে। জানুয়ারি থেকে এপ্রিল মাসের মধ্যে এরা বাচ্চা তোলে। এরা সাধারণত লম্বা গাছের কোটরে বাসা বানায়। চার থেকে ছয়টি সাদা ডিম পাড়ে। খুব অল্প পরিমাণ ফুলটুসি বাংলাদেশের সিলেট এলাকায় স্থায়ীভাবে বাস করে।
লালামাথা টিয়ার ইংরেজি নাম Plum-headed Parakeet এবং দ্বিপদী বা ল্যাটিন নাম Psittacula cyanocephala. ২ টি উপপ্রজাতির মধ্যে বাংলাদেশে Psittacula roseata roseate পাওয়া যায়।

1 comments:

Songs PK said...

Good Collection
Music Download
Fifa worldcup 2018 live

December 9, 2017 at 6:57 AM

Post a Comment